1. sheikhrobirobi008@gmail.com : dailynayakontho :
  2. admin@dailynayakontho.com : unikbd :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১২:৪০ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
সাথিয়া ট্রাই‌কো ক‌ম্পোষ্ট সার বাজারজাতকর‌ণের উপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত। ডেইলি নয়া কণ্ঠ প্রধানমন্ত্রীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। ডেইলি নয়া কণ্ঠ বগুড়ায় দীর্ঘ ২৪ বছর পলাতক থাকা যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার। ডেইলি নয়া কণ্ঠ ওসমানীনগরে এসওএস শিশু পল্লীতে স্কুলড্রেস বিতরণ ও সচেতনতামুলক সভা অনুষ্ঠিত। ডেইলি নয়া কণ্ঠ ভাড়া নিয়ে তর্ক, যাত্রীর ছুরিকাঘাতে চালক নিহত আটক-১। ডেইলি নয়া কণ্ঠ বঙ্গমাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রজেক্ট শোকেজিং অনুষ্ঠিত। ডেইলি নয়া কণ্ঠ তানোরে ট্রাকের চাপাই শিশুর মৃত্যু। ডেইলি নয়া কণ্ঠ রাজশাহীতে বিএসটিআইএর উদ্যোগে  বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস পালন। ডেইলি নয়া কণ্ঠ রাজশাহীতে পালিত হলো দেশের প্রথম বিশ্ব মৌ পতঙ্গ দিবস। ডেইলি নয়া কণ্ঠ দৈনিক নয়াকন্ঠ পত্রিকার প্রথম বর্ষপুর্তি রাজবাড়ীতে উদযাপন। ডেইলি নয়া কণ্ঠ

নরসিংদী ডায়াবেটিকস হাসপাতালে রোগী ভর্তির পর চিকিৎসার অনিয়ম। নয়া কণ্ঠ

  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ৭৭ বার পঠিত

নরসিংদী ডায়াবেটিকস হাসপাতালে রোগী ভর্তির পর চিকিৎসার অনিয়ম

মোঃ মোবারক হোসেন নাদিম
নরসিংদী জেলা প্রতিনিধি

নরসিংদী জেলা ডায়বেটিকস হাসপাতালে রোগী ভর্তির পর চিকিৎসার অনিয়ম হয়েছে। অসুস্থ রোগীর নাম মোঃ সাদেক রহমান মন্ডল, পিতাঃ মোঃ ইদ্রিস মন্ডল, গ্রামঃ ইউনিয়ন লেবুতলা থানা মনোহরদী। গতকাল সকাল ১১টার দিকে মোঃ ছাদেক মন্ডল নামে এক রোগী ভর্তি করেছে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তৃপক্ষ। ভর্তির পর তাকে বিভিন্ন পরিক্ষা দেওয়া হয়। ছাদেক মন্ডলের অভিভাবক সকল পরিক্ষাগুলো করেন প্রায় দশ হাজার টাকা দিয়ে।তারপর দ্বায়িত্বরত ডাক্তার তাকে বলে বিকেলে সার্জারি ডাক্তার আসবে টাকা পয়সা রেডি আছে কি’না?। সাদেকের অভিভাবক বলে টাকা রেডি আছে সমস্যা নাই। তারপর অপেক্ষার পালা চলছে। ‘বিকেলে বেলা জানতে চাইলে কর্মরত ডাক্তার বলে রাতে আসবে, রাতে জানতে চাইলে, সাদেকের অভিভাবক কে তখন কর্মরত ডাক্তার বলে আসেনি, আগামীকাল সকালে আসবে। তখন দুপুর ১২:৩০ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা সময় শেষ হয়েছে,তারপর সার্জারি ডাক্তার আসেনি। নিরুপায় হয়ে  সাদেক মন্ডলের অভিভাবক আমাকে ফোন দেয়।ফোন পেয়ে আমি নরসিংদী ডায়বেটিকস হাসপাতালে দ্রুত গতিতে চলে আসি, গিয়ে দেখি সাদেক মন্ডলের অবস্থা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। তারপর সাদেক মন্ডল ও অভিভাবকের কাছে থেকে জানতে পারি সাদেক মন্ডলকে কোন চিকিৎসা দেওয়া হয়নি, কোন ডাক্তার তাকে দেখতে আসেনি। নার্স শুধু দুইবার এসে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছে। ছাদেক মন্ডলের অভিভাবক কর্মরত ডাক্তারকে বলে, এখানে চিকিৎসা না হলে এখানে রেখে কি লাভ ছুটি (ছাড়পত্র) দিয়ে দেন চলে যাই। সাদেক মন্ডলকে ঢাকা নিয়ে যাবো। তারপর আমি কর্মরত ডাক্তারের কাছে যায়, এই বিষয়ে জানতে চাই। তখন কর্মরত ডাক্তার আমাকে বলে ঢাকা থেকে ডাক্তার না আসলে আমি কি করবো, আসবে বলে তিনি আসে নাই। আমি তখন জানতে চাইলাম সার্জারি ডাক্তার নাই, তাহলে এই রোগীকে ভর্তি করা ঠিক হয়েছে?,তখন তিনি প্রতি উত্তরে বললেন আমার করার কিছু নেই।

শেয়ারঃ

এই জাতীয় অন্যান্য সংবাদ
২০২৩ © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Developed By UNIK BD