1. sheikhrobirobi008@gmail.com : dailynayakontho :
  2. admin@dailynayakontho.com : unikbd :
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজবাড়ি বালিয়াকান্দীতে শান্তি ও সম্প্রীতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত। ডেইলি নয়া কণ্ঠ তীব্র তাপদাহে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে কমেছে যাত্রী ও যানবাহন। ডেইলি নয়া কণ্ঠ ভূমি দস্যুদের অত্যাচার ও প্রাণনাশের হুমকি থেকে বাচঁতে নেত্রকোণা থানায় অসহায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর আবেদন। ডেইলি নয়া কণ্ঠ গুল বিষ্ণুপ্রিয়া আশ্রমে টাকা আত্মসাৎ এর অভিযোগ উঠেছে। ডেইলি নয়া কণ্ঠ রূপগঞ্জে ডাকাতির সময় গ্রেফতার ১। ডেইলি নয়া কণ্ঠ রূপগঞ্জে প্রিপেইড মিটার বন্ধের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ। ডেইলি নয়া কণ্ঠ তাপদাহে পুড়ছে পোরশা বাসি। ডেইলি নয়া কণ্ঠ গোদাগাড়ীতে ৬ কেজি ৫০০ গ্রাম হেরোইনসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার।ডেইলি নয়া কণ্ঠ জয়পুরহাটে বৃষ্টির আশায় ইসতিস্কার নামাজ আদায়। ডেইলি নয়া কণ্ঠ রাজশাহী মহানগরীতে বিএসটিআই এর অভিযানে ৩ টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা।                                                            _____________________________________(২৪ এপ্রিল ) বুধবার  রাজশাহী ব্যুরো বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) বিভাগীয় কার্যালয়, রাজশাহী’র উদ্যোগে আজ ২৪ এপ্রিল বুধবার রাজশাহী মহানগরীতে একটি সার্ভিল্যান্স অভিযান পরিচালিত হয়। এতে বিএসটিআই’র গুণগত মানসনদ গ্রহণ না করে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে শিশুখাদ্য‘আর্টিফিশিয়াল ফ্লেভার্ড ড্রিংকস ও আইস ললি’ উৎপাদন ও বিক্রয়-বিতরণ করায় এবং মোড়কে/লেবেলে অবৈধভাবে বিএসটিআই এর মানচিহ্ন সম্বলিত মনোগ্রাম ব্যবহার করায় সিটি হাটের পশ্চিমে ওবাই এর মোড় সংলগ্ন মেসার্স তৃপ্তি কেমিক্যাল এন্ড ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ হতে প্রায় ২০ হাজার পিস ‘আর্টিফিশিয়াল ফ্লেভার্ড ড্রিংকস ও আইস ললি’ এবং তিন লক্ষ পিস লেবেল/প্যাকেট জব্দ করা হয়। সেই সাথে উৎপাদনে ব্যবহৃত অবৈধ ও নন-ফুডগ্রেড রং ও ফ্লেভার জব্দ করা হয় এবং প্রতিষ্ঠানটির সত্ত্বাধিকারী মোঃ শামীম রেজার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। একই সাথে কারখানা টি বন্ধ করে দেওয়া হয়। একই অপরাধে মহানগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকায় অবস্থিত মেসার্স ক্রিস্টাল এন্টারপ্রাইজ হতে প্রায় ৪০ হাজার পিস ‘আইস ললি’ জব্দ করা হয়। সেই সাথে প্রতিষ্ঠানটির সত্ত্বাধিকারী মোঃ শফিকুল আলমের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয় এবং কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এছাড়া বিসিক শিল্প নগরীতে অবস্থিত জে.কে ফুড প্রোডাক্টস প্রতিষ্ঠানটি বিএসটিআই’র গুণগত মানসনদ গ্রহণ না করে অবৈধভাবে ‘সফট ড্রিংকস পাউডার’ বিক্রয়-বিতরণ করায় এবং মোড়কে/লেবেলে অবৈধভাবে বিএসটিআই এর মানচিহ্ন সম্বলিত মনোগ্রাম ব্যবহার করায় ০৬ কার্টুন ‘সফট ড্রিংকস পাউডার’ জব্দ করা হয় এবং নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। উক্ত সার্ভিল্যান্স অভিযানটি পরিচালনা করেন বিএসটিআই বিভাগীয় কার্যালয়, রাজশাহী এর কর্মকর্তা  মোঃ শরীফ হোসেন ও  প্রকৌশলী জুনায়েদ আহমেদ। জনস্বার্থে বিএসটিআই, রাজশাহীর এধরণের অভিযান নিয়মিতভাবে অব্যাহত থাকবে বলে কর্মকর্তারা জানান। ডেইলি নয়া কণ্ঠ

সাজানো মামলা থেকে বাঁচতে রাজশাহীর বাঘায় শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন। নয়া কণ্ঠ

  • প্রকাশিতঃ শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৮৫ বার পঠিত

 

সাজানো মামলা থেকে বাঁচতে রাজশাহীর বাঘায় শিক্ষকের সংবাদ সম্মেলন

মোস্তাফিজুর রহমান রাজশাহী ব্যুরো চীফ।

বাঘায় মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলায় পড়ে দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে মশিউর রহমান (৩৬) নামে এক শিক্ষকের জীবন। আদালতে প্রতারণা মামলার আসামি হয়ে চরম হতাশা দুশ্চিন্তায় পড়েছেন তিনি । সে উপজেলা চক এনায়েত গ্রামের আব্দুল মতিন এর ছেলে সে কালিদাস খালি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক। হয়রানিমূলক মিথ্যা ওই মামলা থেকে পরিত্রান পেতে মামলার বাদী মোঃ সোলায়মান হোসেনের ছেলে আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী শিক্ষক মশিউর রহমান ও তাঁর পরিবারবর্গ।

শুক্রবার ( ১৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় বাঘা মডেল প্রেস ক্লাব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে ‘সাজানো মামলার’ কারণে নিজের ও পরিবারের দুর্বিষহ জীবনের বর্ণনা দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মশিউর রহমান বলেন, আমি পেশায় একজন শিক্ষক। আমি উপজেলায় দুইবার শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হয়েছি। আমার বিরুদ্ধে থানায় কিংবা আদালতে কোন মামলা মোকদ্দমা নেই। অথচ আব্দুল মান্নান সম্পূর্ণ হিংসাত্মক মনোভাব নিয়ে আমার বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা দায়ের করেছেন। দায়েরকৃত অভিযোগে বলা হয়েছে, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি-২০২২ এবং ১৬ ফেব্রুয়ারি-২০২২ ইং তারিখে আমার নিজ নামীও ব্যাংক একাউন্টে ( সোনালী ব্যাংক) যথাক্রমে ৯ লক্ষ ৫০ হাজার এবং ৩ লক্ষ টাকা জমি দেওয়ার শর্তে নিয়েছি। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত ।

প্রকৃত সত্য হলো, সাংসারিক বিশেষ প্রয়োজনে টাকার দরকার হলে আমার পিতা ১ একর ১২ শতাংশ জমি বিক্রয়ের ঘোষণা দেন। মামলার বাদী আমার পূর্ব পরিচিত । সে উক্ত সম্পত্তি ক্রয় করতে আগ্রহী হয়। সে মোতাবেক তিনি গত ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২২ তারিখে বড়াইগ্রাম সাব রেজিস্টার অফিসের মাধ্যমে নিজ নামে ১ একর ১২ শতাংশ জমি রেজিস্ট্রি করে নেন। যার দলিল নম্বর ৫৩৮/২২। উক্ত জমির মোট মূল্যের মধ্যে ৯ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা পরের দিন অর্থাৎ ১৫ ই ফেব্রুয়ারি ২০২২ এনআরবিসি ব্যাংকের চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করেন।

এরপর প্রায় দেড় বছর পর গত ৩০ এপ্রিল ২০২৩ আদালতে আমার বিরুদ্ধে ৪০৬ ও ৪২০ ধারায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলার সমন পেয়ে আমি তার বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন সহ আইনি ব্যবস্থা নিতে চাইলে তিনি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করবে বলে কথা দেন। কিন্তু মামলার তিন মাস পেরিয়ে গেলেও তিনি আমার বিরুদ্ধে আনিত মিথ্যা অভিযোগ প্রত্যাহার করেননি।

তিনি আরো বলেন, মিথ্যা মামলার কারণে এখন আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। সংবাদ সম্মেলনের অভিযোগের বিষয়ে আব্দুল মান্নান বলেন, মশিউর আমার সাথে প্রতারণা করেছে। তার বাবার নামেও ২০২০ সাল থেকে প্রতারণার মামলা চলমান রয়েছে। আজ থেকে ৩ মাস আগে প্রায় ৪ মাস সে জেল খেটেছে। আমার কাছে সে জমি দেওয়ার কথা বলে টাকা নিয়েছে। জমি দেওয়ার কোন চুক্তিপত্র কিংবা অন্য কোন এভিডেন্স আছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মন্নান বলেন, আমি সরল বিশ্বাসে টাকা দিয়েছি। আমার লিখিত কোন ডকুমেন্ট নেই। সংবাদ সম্মেলনে মশিউর রহমানের সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন তার পিতাসহ শতাধিক এলাকাবাসী।

শেয়ারঃ

এই জাতীয় অন্যান্য সংবাদ

রাজশাহী মহানগরীতে বিএসটিআই এর অভিযানে ৩ টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা।                                                            _____________________________________(২৪ এপ্রিল ) বুধবার  রাজশাহী ব্যুরো বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) বিভাগীয় কার্যালয়, রাজশাহী’র উদ্যোগে আজ ২৪ এপ্রিল বুধবার রাজশাহী মহানগরীতে একটি সার্ভিল্যান্স অভিযান পরিচালিত হয়। এতে বিএসটিআই’র গুণগত মানসনদ গ্রহণ না করে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে শিশুখাদ্য‘আর্টিফিশিয়াল ফ্লেভার্ড ড্রিংকস ও আইস ললি’ উৎপাদন ও বিক্রয়-বিতরণ করায় এবং মোড়কে/লেবেলে অবৈধভাবে বিএসটিআই এর মানচিহ্ন সম্বলিত মনোগ্রাম ব্যবহার করায় সিটি হাটের পশ্চিমে ওবাই এর মোড় সংলগ্ন মেসার্স তৃপ্তি কেমিক্যাল এন্ড ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ হতে প্রায় ২০ হাজার পিস ‘আর্টিফিশিয়াল ফ্লেভার্ড ড্রিংকস ও আইস ললি’ এবং তিন লক্ষ পিস লেবেল/প্যাকেট জব্দ করা হয়। সেই সাথে উৎপাদনে ব্যবহৃত অবৈধ ও নন-ফুডগ্রেড রং ও ফ্লেভার জব্দ করা হয় এবং প্রতিষ্ঠানটির সত্ত্বাধিকারী মোঃ শামীম রেজার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। একই সাথে কারখানা টি বন্ধ করে দেওয়া হয়। একই অপরাধে মহানগরীর রামচন্দ্রপুর এলাকায় অবস্থিত মেসার্স ক্রিস্টাল এন্টারপ্রাইজ হতে প্রায় ৪০ হাজার পিস ‘আইস ললি’ জব্দ করা হয়। সেই সাথে প্রতিষ্ঠানটির সত্ত্বাধিকারী মোঃ শফিকুল আলমের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয় এবং কারখানাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়। এছাড়া বিসিক শিল্প নগরীতে অবস্থিত জে.কে ফুড প্রোডাক্টস প্রতিষ্ঠানটি বিএসটিআই’র গুণগত মানসনদ গ্রহণ না করে অবৈধভাবে ‘সফট ড্রিংকস পাউডার’ বিক্রয়-বিতরণ করায় এবং মোড়কে/লেবেলে অবৈধভাবে বিএসটিআই এর মানচিহ্ন সম্বলিত মনোগ্রাম ব্যবহার করায় ০৬ কার্টুন ‘সফট ড্রিংকস পাউডার’ জব্দ করা হয় এবং নিয়মিত মামলা দায়েরের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়। উক্ত সার্ভিল্যান্স অভিযানটি পরিচালনা করেন বিএসটিআই বিভাগীয় কার্যালয়, রাজশাহী এর কর্মকর্তা  মোঃ শরীফ হোসেন ও  প্রকৌশলী জুনায়েদ আহমেদ। জনস্বার্থে বিএসটিআই, রাজশাহীর এধরণের অভিযান নিয়মিতভাবে অব্যাহত থাকবে বলে কর্মকর্তারা জানান। ডেইলি নয়া কণ্ঠ

২০২৩ © সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Developed By UNIK BD